চবি'তে সাড়ম্বরে পালিত ১২৩ তম নজরুলজয়ন্তী





শেয়ার

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে সাড়ম্বরে পালিত হয়েছে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ১২৩ তম জন্মদিবস। এ উপলক্ষে ''নজরুল জন্মজয়ন্তী'র আয়োজন করেছে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের নজরুল গবেষণা কেন্দ্র। গতকাল ২৬ মে বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে দশটায় চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদ মিলনায়তনে এ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) উপাচার্য অধ্যাপক ড. শিরীণ আখতার। প্রধান অতিথির বক্তৃতায় অধ্যাপক ড. শিরীণ আকতার বলেন, কাজী নজরুল ইসলাম মানবতা ও দ্রোহের কবি। সারাজীবন তিনি মানবতার জয়গান করেছেন। নজরুল এক বিস্ময়কর প্রতিভার নাম। তাঁর সম্পর্কে এখনও পরিপূর্ণ কোন গ্রন্থ রচিত হয়নি যার মাধ্যমে আমরা তাঁকে পূর্ণাঙ্গভাবে জানতে পারবো। বলা যায় নজরুল এখনও অনাবিষ্কৃত। অনুষ্ঠানে মুখ্য আলোচক ছিলেন বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক কবি মুহম্মদ নূরুল হুদা। তিনি বলেন, আমরা সাড়ম্বরে নজরুলজয়ন্তী পালন করি কিন্তু এখনও আমরা মানবতাবাদী নজরুলকে সত্যিকার অর্থে ধারণ করতে পারিনি। একারণে আজ আমরা দেখছি সম্প্রদায়ে সম্প্রদায়ে, মানুষে মানুষে যুদ্ধ হচ্ছে। কিন্তু আমরা কোনো সমাধান পাচ্ছি না। কারণ নজরুল যে সাম্যবাদের কথা বলেছেন তা আজও তা আমরা হৃদয়ে ধারণ করতে পারিনি। নজরুল গবেষণা কেন্দ্রের পরিচালক অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আনোয়ার সাঈদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক বেনু কুমার দে। সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন একুশে পদকপ্রাপ্ত পিএইচপি গ্রুপের চেয়ারম্যান সুফি মোহাম্মদ মিজানুর রহমান। আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলা একাডেমি পুরস্কারপ্রাপ্ত কথাসাহিত্যিক ও সাংবাদিক বিশ্বজিৎ চৌধুরী। এছাড়া অনুষ্ঠানে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন অনুষদের ডিন, প্রক্টরিয়াল বডির সদস্য এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে সংগীত পরিবেশন করেন খ্যাতিমান শাস্ত্রীয় ও নজরুল সংগীতশিল্পী ড. প্রিয়াংকা গোপ।

সারাদেশ


শেয়ার