আজকের সর্বশেষ

সভাপতি- খায়রুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক- কেফায়েতুল্লাহ কায়সার। জাতীয় সাংবাদিক সংস্থা চট্টগ্রাম বিভাগের নতুন কমিটি

জাতীয় সাংবাদিক সংস্থার কেন্দ্রীয় কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান হলেন চট্টগ্রামের সাংবাদিক খায়রুল ইসলাম, ও যুগ্ম মহাসচিব কেফায়েতুল্লাহ কায়সার

চ্যানেল কৃষি সন্মাননা পেলেন লেখক ও সংগঠক শামছুল আরেফিন শাকিল

চ্যানেল কৃষি সন্মাননা পেলেন নির্মাতা ও অভিনেতা মোশারফ ভূঁইয়া পলাশ

আইএফআইসি ব্যাংক শিবের হাট উপশাখা উদ্বোধন

জাপান বুঝিয়ে দিলো ফুটবল শুধু পশ্চিমের নয়

বাকবিশিস'র ১০ জাতীয় সম্মেলন সম্পন্ন : ড. নুর মোহাম্মদ তালুকদার সভাপতি, অধ্যক্ষ মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত

অধ্যক্ষ শিমুল বড়ুয়া বাকবিশিস'র কেন্দ্রীয় প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক নির্বাচিত


নাসিক নির্বাচন : হ্যাটট্রিক





শেয়ার

দু’একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়া শেষ হয়েছে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচন। এতে ৬৯১০২ ভোটের বিশাল ব্যবধানে নির্বাচিত হয়েছেন নৌকা প্রতীকের প্রার্থী ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী। রিটার্নিং কর্মকর্তা মাহফুজা আক্তার ঘোষিত বেসরকারি ফলাফলে মোট ১৯২টি কেন্দ্রে তিনি ভোট পেয়েছেন ১ লাখ ৬১ হাজার ২৭৩। তার নিকটতম স্বতন্ত্র প্রার্থী হাতি মার্কার তৈমূর আলম খন্দকার পেয়েছেন ৯২ হাজার ১৭১টি ভোট। এ ছাড়া ইসলামী আন্দোলনের হাত পাখার প্রার্থী মাওলানা মাসুম বিল্লাহ পেয়েছেন ৪২৮০ ভোট। নাসিকে ৫ লাখ ১৭ হাজার ৫৭ ভোটারের মধ্যে ৫০ ভাগ ভোট কাস্ট হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে জানানো হয়েছে নির্বাচন কমিশন থেকে। নারায়ণগঞ্জ সিটি নির্বাচনে এটি সেলিনা হায়াৎ আইভীর হ্যাটট্রিক বিজয়। ২০১১ সালে এই সিটি করপোরেশন গঠন হওয়ার পর প্রথমবারেই স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে বিজয়ী হন আইভী।

 

পরের বার নৌকা প্রতীক নিয়ে বিশাল ব্যবধানে জয় লাভ করেন তিনি। গতকাল সকাল ৮ থেকে বিকাল চারটা পর্যন্ত চলে এবারের নাসিক নির্বাচনের ভোট। ভোট হয়েছে ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম)। প্রতিটি কেন্দ্রে ভোটারদের উপস্থিতিও ছিল চোখে পড়ার মতো। পুরুষের পাশাপাশি নারী ভোটারও ছিল তুলনামূলকভাবে বেশি। নতুন ভোটারদের উপস্থিতিও ছিল বেশ। ঘটেনি কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা। এতকিছুর পরে আলোচনায় ছিল ইভিএম। প্রায় কেন্দ্রে ভোটারদের অভিযোগ ছিল ইভিএম মেশিন নিয়ে। তাদের অভিযোগ, ইভিএম মেশিন স্লো কাজ করেছে। কিছু কিছু কেন্দ্রে দু’এক ঘণ্টা পরে মেশিন নষ্ট হয়ে গেছে। এ ছাড়া অনেক ভোটারদের আঙ্গুলের ছাপ মেলেনি। অনেকে আবার কীভাবে ভোট দিতে হয় না সেটাই জানতেন না। এ ছাড়া বয়স্ক ভোটাররাও ভোট দিতে গিয়ে পড়েছেন বিপাকে। যদিও নির্বাচন সংশ্লিষ্টরা বলেছেন, ভোটের আগে মকভোটিংয়ে ব্যবস্থা করা হলেও সেখানে নারী ভোটাররা উপস্থিত ছিলেন না। যার ফলে ভোটারদের লাইনে দাঁড়ানো অবস্থায় ইভিএমে ভোট দেয়া সম্পর্কে বুঝিয়ে দিতে হয়েছে। এজন্য কিছুটা সময়ে লেগেছে। তবে যারাই এসেছে সবার ভোটগ্রহণ করা হয়েছে।
ভোট দিতে না পারার অভিযোগ
ভোটগ্রহণের নির্ধারিত সময়ের পরও নারায়ণগঞ্জ সিটি নির্বাচনে ভোট দিতে লাইনে দাঁড়িয়ে ছিলেন ভোটাররা। বেশকিছু কেন্দ্রে এই দৃশ্য দেখা গেছে। বিকাল ৪টায় ভোটগ্রহণ শেষ হওয়ার কথা ছিল এই নির্বাচনে। তবে নির্ধারিত সময় শেষ হলেও অধিকাংশ কেন্দ্রে ভোটারদের দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গেছে। ভোটারদের অভিযোগ, ইভিএমে ভোটগ্রহণের কারণে অনেক বিভ্রাটের সৃষ্টি হয়েছে। অনেকের আঙ্গুলের ছাপ মিলছিল না, অনেকে আবার কীভাবে ভোট দিতে হবে বুঝতে পারছিলেন না। সবমিলিয়ে অনেক সময় লেগেছে। একদিকে ভোটারের লম্বা লাইন, অন্যদিকে ধীর গতিতে ইভিএমে ভোট নিয়ে চাপের মধ্যে ছিলেন ভোট সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা।
আটক ও বিচ্ছিন্ন ঘটনা
নাসিক নির্বাচনে কয়েকটি কেন্দ্রে বিচ্ছিন্ন ঘটনা ঘটেছে। ১২নং ওয়ার্ডের একটি কেন্দ্রে এ বিশৃঙ্খলার ঘটনা ঘটে। ওই কেন্দ্র থেকে এক যুবককে আটক করা হয়েছে। একই ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী শওকত হাশেম শকুর স্ত্রী দিপা হাশেমকে কেন্দ্রের ভেতর লাঞ্ছনার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এদিকে ভোটকেন্দ্র থেকে মহানগর যুবদলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মনোয়ার হোসেন সুখনকে আটক করা হয়েছে। সকাল ১১টায় নগরীর ২০নং ওয়ার্ডের সোনাকান্দা কেন্দ্র থেকে তাকে আটক করে পুলিশ।
কেন্দ্রগুলোতে ছিল ব্যাপক নিরাপত্তা
প্রতিটি ভোটকেন্দ্রে ছিল ব্যাপক নিরাপত্তা। এসব কেন্দ্রে ছিল তিন স্তরের নিরাপত্তা বলয়। পুলিশ, র‌্যাব, আনসার, বিজিবিসহ পাঁচ হাজারের বেশি আইনশৃঙ্খলা বাহিনী মোতায়েন ছিল এবারের নির্বাচনে। প্রতিটি ওয়ার্ডে একজন করে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দায়িত্ব পালন করেছেন। ১৯২টি ভোটকেন্দ্রের প্রতিটিতে একজন এস আইয়ের নেতৃত্বে ছিলেন পাঁচজন করে পুলিশ সদস্য। এ ছাড়া আটজন পুরুষ ও চারজন নারী আনসার সদস্য নিরাপত্তার দায়িত্বে ছিলেন।
তৃতীয় লিঙ্গের ভোটারদের উচ্ছ্বাস
এবারের নাসিক নির্বাচনের তৃতীয় লিঙ্গের ভোটার ছিলেন চারজন। নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে ১ নম্বর ওয়ার্ডের মিজমিজি পাইনাদী রেকমত আলী উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোট দিয়েছেন দুই ভোটার। গতকাল সকাল ৯টার দিকে ভোট দেন তারা। সন্ধ্যা ও রুবিনা নামের ওই দুই ভোটার উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে বলেন, জীবনে প্রথমবার ইভিএমে ভোট দিয়ে খুব ভালো লাগছে। আমরা যদি কখনো মানুষের পাশে দাঁড়াতে পারি, ভালো কাজ করে জনপ্রিয়তা অর্জন করতে পারি তাহলে আমরাও ভবিষ্যতে চিন্তা-ভাবনা করবো কাউন্সিলর প্রার্থী হওয়ার। আমরা দু’জনই পছন্দের প্রার্থীদের ভোট দিয়েছি। আমরা আশা করি জনপ্রতিনিধি যারাই হোক তারা আমাদের পাশে দাঁড়াবে।
পুত্রবধূর কাঁধে চড়ে বৃদ্ধার ভোট
বয়সের ভারে ন্যুব্জ ৮০ বছর বয়সী জাহেদা বেগম। তবু ভালোবাসার টানে এসেছিলেন ভোট দিতে। নগরীর শিশুবাগ বিদ্যালয় কেন্দ্রে পা রাখতেই সবার নজর কাড়েন এ বৃদ্ধা। তাকে দেখে এগিয়ে আসেন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যসহ আরও অনেকে। পরে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের সহযোগিতায় বুথে গিয়ে ভোট দেন তিনি। ভোট দিয়ে বের হয়ে এসে জাহেদা বলেন, চোখে খুব ভালো দেখতে পাই না। কয়েক বছর আগে চলনশক্তি হারিয়েছেন। তবু কেন্দ্রে এসে ভোট দেয়ার আগ্রহে কোনো ভাটা পড়েনি। তাই ছেলের বউ রোখসানা আক্তারের কাঁধে ভর করে শিশুবাগ বিদ্যালয়ে ভোট দিতে এসেছি। সুষ্ঠুভাবে ভোট দিতে পেরে আনন্দের হাসি হাসলেন জাহেদা।
অটোরিকশার কদর
নাসিক নির্বাচনে ভোটের দিন কদর বেড়েছিলো ব্যাটারিচালিত অটোরিকশার ব্যবহার। ভোটাররা অটোরিকশায় চড়ে কেন্দ্রে এসেছেন। ভোট দিয়ে আবার অটোরিকশায় বাড়ি ফিরেছেন। এদিন সকাল থেকে ভোটকেন্দ্রগুলোর সামনে এমন দৃশ্যের দেখা মেলে। তবে ভোটারদের কাছ থেকে অতিরিক্ত ভাড়া নেয়ার অভিযোগ উঠেছে। আজিজুল হাকিম নামে এক রিকশাযাত্রী বলেন, আজকে রিকশার বেশি চাহিদা থাকায় তারা বেশি ভাড়া নিচ্ছে। ভাড়া নিয়ে তাদের সঙ্গে তর্কাতর্কিও করা যাচ্ছে না। তিনগুণ থেকে চারগুণ পর্যন্ত ভাড়া নিচ্ছে তারা। বিল্লাল হোসেন নামে আরেক রিকশাযাত্রী বলেন, রিকশা ছাড়া আর কোনো যানবাহন নেই। অনেকটা বাধ্য হয়ে রিকশাতে চড়ে ভোট দিতে যাচ্ছি। অন্যদিকে, অনেক কাউন্সিলর প্রার্থীকে অটোরিকশা ভাড়া করে ভোটারদের বাড়ি থেকে কেন্দ্রে নিয়ে আসতে দেখা যায়।
এবারের নির্বাচনে মেয়রসহ ৩৭টি পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ১৮৯ প্রার্থী। এরমধ্যে মেয়র পদে ৭ জন, ২৭টি ওয়ার্ডে ১৪৮ জন সাধারণ কাউন্সিলর এবং ৯টি সংরক্ষিত নারী আসনে ৩৪ প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এবারের ভোটে দেশের পাঁচটি রাজনৈতিক দলের ৫ জন প্রার্থী মেয়র পদে অংশ নিয়েছেন। স্বতন্ত্র প্রার্থী ছিলেন দু’জন।

সারাদেশ


শেয়ার