আগামী ২৮ ডিসেম্বর বঙ্গবন্ধু ট্যুর-ডি-সিএইচটি এমটিবি চ্যালেঞ্জ বাইক রেস





শেয়ার

চট্টগ্রাম : সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর জন্মশত বার্ষিকী মুজিববর্ষ উদযাপন উপলক্ষে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে চলতি বছরে শুরু হচ্ছে বঙ্গবন্ধু ট্যুর-ডি-সিএইচটি এমটিবি চ্যালেঞ্জ বাইক রেস।  তিন পার্বত্য জেলা হতে ৪৫ জন এবং দেশের অন্যান্য জেলাসমূহ হতে ৫৫ জন- এ একশতজন সাইক্লিস্ট এর অংশগ্রহনে তিন দিনব্যাপী এ মনোজ্ঞ প্রতিযোগিতা শুরু হবে আগামী ২৮ ডিসেম্বর রাঙ্গামাটি জেলার পর্যটন এলাকা সাজেক হতে।

 

পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের ব্যবস্থাপনায় এবং বাংলাদেশ এ্যাডভেঞ্চার ফাউন্ডেশন, পার্বত্য জেলা পরিষদ, বাংলাদেশ সেনাবাহিনী,  বিজিবি, জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসনসহ  বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি সংস্থার সহযোগিতায় বঙ্গবন্ধু ট্যুর ডি সিএইচটি এমটিবি চ্যালেঞ্জ ২০২০ আয়োজন করা হয়েছে।  

 

তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ ২৮ ডিসেম্বর সকাল ৮টায়  প্রতিযোগিতা উদ্বোধন করবেন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ সফিকুল আহম্মদ। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলার সংসদ সদস্য ও খাদ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি দীপংকার তালুকদার, খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলার সংসদ সদস্য ও উপজাতীয় শরণার্থী বিষয়ক টাস্কফোর্স এর চেয়ারম্যান (প্রতিমন্ত্রী পদমর্যাদা) কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এবং সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য  বাসন্তী চাকমা। এছাড়া বিভিন্ন সরকারি বেসরকারি গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ, সেনাবাহিনীর উর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন।

 

জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকী উদযাপনে পাহাড়ে নতুন মাত্রা সংযোজন, পার্বত্য চট্টগ্রাম অঞ্চলে অ্যাডভেঞ্চার ক্রীড়া পর্যটনকে অগ্রসর করা,  স্থানীয় জনগোষ্ঠীকে মাউন্টেইন বাইকের সাথে পরিচিতকরণ,  আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতাসমূহে অংশগ্রহণের সুযোগ সৃষ্টি করা,  নতুন প্রজন্মের শারীরিক ও মানসিক স্বাস্থ্য বিকাশে সক্ষমতা বৃদ্ধি,  নিরাপদ ও টেকসই বাহন হিসেবে মাউন্টেন বাইককে পরিচিতকরণ,  পরিবেশ বান্ধব ও সাশ্রয়ী বাহন হিসেবে মাউন্টেন বাইক এর প্রচলন,  মাদকমুক্ত সমাজ গড়া প্রভৃতি উদ্দেশ্য নিয়ে এ প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়েছে।

 

সাজেক থেকে শুরু হওয়া এ প্রতিযোগিতা খাগড়াছড়ি, রাঙ্গামাটি ও বান্দরবান পার্বত্য জেলার থানচি গিয়ে শেষ হবে। তিনদিনে প্রতিযোগিতগণ ২০০ কিঃমিঃ এর অধিক পথ পাড়ি দিবেন।  প্রথম দিন ২৮ ডিসেম্বর সোমবার সকাল ৮টা সাজেক থেকে রাঙ্গামাটি চিং হ্লা মং চৌধুরী মারী স্টেডিয়াম (১৩০ কিঃমি) গিয়ে যাত্রা শেষ হবে। দ্বিতীয় দিন ২৯ ডিসেম্বর মঙ্গলবার সকাল ৮টা রাঙ্গামাটি চিং হ্লা মং চৌধুরী মারী স্টেডিয়াম থেকে বান্দরবান স্টেডিয়াম (৯০ কিঃমি) গিয়ে যাত্রা বিরতি হবে। তৃতীয় দিন ৩০ ডিসেম্বর বুধবার সকাল ৮টায় বান্দরবান স্টেডিয়াম থেকে থানচির সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠ পর্যন্ত ৮০ কিঃমি পথ অতিক্রমের পর প্রতিযোগিতার সমাপ্তি ঘটবে। 

 

প্রতিযোগিতায় ৭ লক্ষ টাকা মূল্যের সমপরিমাণ পুরস্কার বিজয়ীদের প্রদান করা হবে।  চ্যাম্পিয়ন পাবে ৩ লক্ষ টাকা। প্রথম রানার আপ ২ লক্ষ টাকা, দ্বিতীয় রানারআপ ১ লক্ষ টাকা ও বিশেষ পুরস্কারসমূহ  ১.৫০ লক্ষ টাকার। এছাড়া সফল প্রতিযোগিদের সবাইকে সনদ,  মেডেল ও ক্রেস্ট প্রদান করা হবে। 

 

সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি। সভাপতিত্ব করবেন মন্ত্রণালয়ের সচিব সফিকুল আহম্মদ। বিশেষ অতিথি অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বান্দরবান জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ক্য শৈ হ্লা, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের ভাইস চেয়ারম্যান মোঃ নূরুল আলম নিজামী (অতিরিক্ত সচিব)। এছাড়া বিভিন্ন সরকারি বেসরকারি গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ, সেনাবাহিনীর উর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত থাকবেন।

 

বঙ্গবন্ধু ট্যুর ডি সিএইচটি এমটিবি চ্যালেঞ্জ ২০২০ তরুণ প্রজন্মকে দেশীয় বিভিন্ন ক্রীড়া ও সংস্কৃতি সম্পর্কে ধারণা প্রদান, অ্যাডভেঞ্চার ক্রীড়ার মাধ্যমে সুস্থ্য দেহ ও সুন্দর মনের অধিকারী জীবন যাপন এবং বিশ^ব্যাপি জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রতিক্রিয়া কমিয়ে আনতে উৎসাহিত করবে। এ দীর্ঘ পাহাড়ী জনপদ তথা আঁকা বাঁকা পাহাড়ী পথ বাইসাইকেলে অতিক্রম করার মধ্য দিয়ে তরুন প্রজন্ম  অন্যরকম ক্রীড়া অ্যাডভেঞ্চারের অভিজ্ঞতা অর্জন করবে বলে আয়োজকগণ আশা করছেন।  

 

সারাদেশ


শেয়ার