আজকের সর্বশেষ

সভাপতি- খায়রুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক- কেফায়েতুল্লাহ কায়সার। জাতীয় সাংবাদিক সংস্থা চট্টগ্রাম বিভাগের নতুন কমিটি

জাতীয় সাংবাদিক সংস্থার কেন্দ্রীয় কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান হলেন চট্টগ্রামের সাংবাদিক খায়রুল ইসলাম, ও যুগ্ম মহাসচিব কেফায়েতুল্লাহ কায়সার

চ্যানেল কৃষি সন্মাননা পেলেন লেখক ও সংগঠক শামছুল আরেফিন শাকিল

চ্যানেল কৃষি সন্মাননা পেলেন নির্মাতা ও অভিনেতা মোশারফ ভূঁইয়া পলাশ

আইএফআইসি ব্যাংক শিবের হাট উপশাখা উদ্বোধন

জাপান বুঝিয়ে দিলো ফুটবল শুধু পশ্চিমের নয়

বাকবিশিস'র ১০ জাতীয় সম্মেলন সম্পন্ন : ড. নুর মোহাম্মদ তালুকদার সভাপতি, অধ্যক্ষ মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত

অধ্যক্ষ শিমুল বড়ুয়া বাকবিশিস'র কেন্দ্রীয় প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক নির্বাচিত


এসএসসি শুরু ১৫ই সেপ্টেম্বর





শেয়ার

করোনার কারণে পিছিয়ে যাওয়া ও স্থগিত হওয়া এ বছরের এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু হবে আগামী ১৫ই সেপ্টেম্বর থেকে। এসএসসি পরীক্ষা শেষ হওয়ার দেড় মাস পর শুরু হবে এইচএসসি ও সমমানের  পরীক্ষা। গতকাল সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এ তথ্য জানান। এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা ছাড়াও বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত শিক্ষাখাতের ক্ষতি পুষিয়ে নিতে সরকারের নানা উদ্যোগ জানাতে এ সংবাদ সম্মেলন আয়োজন করা হয়। শিক্ষামন্ত্রী বলেন, বন্যার কারণে স্থগিত হওয়া এসএসসি ও সমমান পরীক্ষা আগামী ১৫ই সেপ্টেম্বর শুরু হবে। শিক্ষা বোর্ডগুলো সেই অনুযায়ী পরীক্ষার সংশোধিত সময়সূচি তৈরি করে প্রকাশ করবে। এসএসসি শুরুর ৪৫ দিন পর অর্থাৎ নভেম্বরের শুরুতে এইচএসসি পরীক্ষা শুরু হবে। দীপু মনি বলেন, এবার এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার মাঝে বড় ধরনের বিরতি থাকবে না। দ্রুত সময়ের মধ্যে এসব পরীক্ষা শেষ করা হবে। পরীক্ষা শুরুর দুই সপ্তাহ আগে সংশোধিত সময়সূচি প্রকাশ করা হবে।

পরীক্ষা চলাকালীন দেশের সব ধরনের কোচিং সেন্টার বন্ধ থাকবে। এ বছর এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য রেজিস্ট্রেশন করেছে ২০ লাখ ২২ হাজার শিক্ষার্থী। সেপ্টেম্বরে পরীক্ষা নেয়ার বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, আমরা মধ্য আগস্টে এসএসসি পরীক্ষা শুরু করতে চেয়েছিলাম। কিন্তু মধ্য আগস্টে দেশে বন্যার আশঙ্কা আছে। এজন্য এ বছরের স্থগিত এসএসসি পরীক্ষা ১৫ই সেপ্টেম্বর থেকে শুরু করতে চাই। বন্যা পরিস্থিতির কারণে সারা দেশে ১ লাখ ২ হাজার ৫০০ শিক্ষার্থীর বই ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এসব শিক্ষার্থীর জন্য ১৮ই জুলাইয়ের মধ্যে জেলা পর্যায়ে নতুন পাঠ্যবই পাঠানো হবে। এর বাইরে আরও চাহিদা এলে তাদেরও পাঠ্যবই দেয়া হবে। শিক্ষামন্ত্রী বলেন, সিলেটসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় বন্যায় অনেক শিক্ষার্থীর পাঠ্যপুস্তক নষ্ট হয়ে গেছে। তাদের তালিকা সংগ্রহ করা হয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, শিক্ষকদের কোচিং বন্ধ করে দেয়া হবে না। তবে শিক্ষকদের প্রাইভেটে পড়লে নম্বর বেশি পাবে, না পড়লে কম পাবে, বাধ্য করে কোচিংয়ে নেয়া- এসব অনৈতিক কার্যক্রম বন্ধ করতে শিক্ষা আইনে বলা হয়েছে। এটি বন্ধ করতে শিক্ষকরা নিজ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের পড়াতে পারবেন না। তিনি বলেন, এসব বিষয় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ম্যানেজিং বডির সদস্য, প্রতিষ্ঠান প্রধান ও অভিভাবক প্রতিনিধিরা নিয়মিত মনিটরিং করবেন। তার সঙ্গে অভিভাবকদের সচেতন থাকতে হবে। শুধু আইন করে কোনো কিছু বন্ধ করা সম্ভব হয় না। সবাই সচেতন হলে অনিয়ম বন্ধ করা সম্ভব হবে। সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন, শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. আবু বকর ছিদ্দিক, ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক তপন কুমার সরকার, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক (চলতি দায়িত্ব) অধ্যাপক শাহেদুল খবির চৌধুরী প্রমুখ।

 

শিক্ষা ও সাহিত্য


শেয়ার