২১ শতকের এতটা পথ পেরিয়েও মেয়েদের এমন লাঞ্ছনা দেখতে হবে? পরীমণি কাণ্ডে প্রশ্ন জয়ার





শেয়ার

বাংলাদেশের জনপ্রিয় অভিনেত্রী পরীমণির সমর্থনে মুখ খুললেন সে দেশের আরেক বিখ্যাত অভিনেত্রী জয়া আহসান। সোমবার নেটমাধ্যমে তাঁর সহকর্মীর সঙ্গে হওয়া আচরণের ধিক্কার জানান তিনি। একই সঙ্গে প্রশ্ন তোলেন, ‘যে চলচ্চিত্র শিল্পকে রক্তে–ঘামে আমরা তিল তিল করে গড়ে তুলছি, তা এতই নড়বড়ে! এতই খেলো?’

বাংলাদেশের প্রথম সারির সংবাদমাধ্যমে প্রকাশ, ১০ জুন রাতে পরীমণি তাঁর ২ বন্ধুকে নিয়ে একটি ক্লাবে যান। পরীমণির অভিযোগ, সেখানে কয়েক জন ব্যক্তির সঙ্গে পরিচয় হয় তাঁর। তাঁদের একজন আচমকা তাঁর মুখে পানীয়ের গ্লাস চেপে ধরেন। শ্লীলতাহানিরও চেষ্টা করেন। অভিনেত্রীর কথায়, বেধড়ক মারধর করা হয় তাঁর এক বন্ধুকে। তাঁর দাবি, এঁদের মধ্যে একজন বাংলাদেশের প্রভাবশালী ব্যবসায়ী। তাই গত ৪ দিন ধরে পরীমণি প্রশাসন সহ সবার সাহায্য চেয়েও পাননি।

এই জায়গাতেই আপত্তি জয়ার। তাঁর কটাক্ষ, ‘২১ শতকের অনেকটা পথ পার হয়ে এসে কেন এখনও মেয়েদের এমন লাঞ্ছনা দেখতে হবে? কোনও মানুষের কোনও মেয়ের সঙ্গে এমন আচরণ করার মন, মানসিকতা বা দুঃসাহস কোত্থেকে আসে’? জয়ার কথায়, পরীমণির খবরটি শোনার পর থেকে বেদনা ও ধিক্কারে মনটা ভরে উঠেছে তাঁর। একজন মানুষ হিসেবে, মেয়ে হিসেবে, অভিনয় জগতের একজন সদস্য হিসেবে এই অমানবিক আচরণের জন্য কষ্ট পাচ্ছেন তিনি। নিজের লেখা বক্তব্যের পরেই পরীমণির জন্য সুবিচারের আর্জি জানান তিনি। বলেন, ‘আমরা এই ঘটনার শেষ পর্যন্ত বুঝতে চাই। আমরা দেখতে চাই, এমন নিন্দনীয় আচরণের বিচার হয়েছে। দেখতে চাই, কোনও মেয়ে তা সে যে–ই হোন, তাঁর সঙ্গে ঘটা এমন আচরণের অবসান হয়েছে’।

জয়ার মন্তব্যে ইতিমধ্যেই সায় জানিয়েছেন ৬ হাজার নেটাগরিক। জনৈকের দাবি, ‘বাস্তব বড়ই কঠিন। পরীমণিকে বাংলাদেশের অধিকাংশ লোক চিনলেও তাঁর পক্ষ নিয়ে আজ কথা বলার লোক নেই।’ ইতিমধ্যেই কেউ আবার ‘ঠিকই হয়েছে, তাঁর সঙ্গে এমনই হওয়া উচিত’ বলেও মন্তব্য করেছেন।

  • Anandabazar

বিনোদন


শেয়ার