১৪ হাজার গৃহহীন লালদিয়ার চরবাসীর সামনে দিয়ে ভাসানচর যাচ্ছে আরো ২ হাজার রোহিঙ্গা।





শেয়ার

ইসমাইল হোসেন নয়ন: কক্সবাজার টেকনাফ থেকে ধাপে ধাপে নোয়াখালীর ভাসানচরে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে রোহিঙ্গাদের। টেকনাফ থেকে প্রথমে চট্টগ্রাম বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর শাহীন কলেজে ভোজনের ব্যবস্থা করে রোহিঙ্গাদের জন্য। তারপর আজ সকালে চট্টগ্রাম বোর্ট ক্লাব থেকে জাহাজ যোগে নোয়াখালীর ভাসানচরে যাবে আরো দুই হাজার রোহিঙ্গা। রোহিঙ্গাদের এমন স্থাপনার ব্যবস্থা করে দিয়ে প্রশংসার ভাসছে বাংলাদেশ। কিন্তু চট্টগ্রাম বোর্ট ক্লাবের পাশে পতেঙ্গার লালদিয়ার চরে ২৩'শ পরিবার প্রায় ১৫ হাজার মানুষ আজ গৃহহীন। চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষ মহামান্য হাইকোর্টের নির্দেশে গত পহেলা মার্চ লালদিয়ার চরে উচ্ছেদ কার্যক্রম। এই বিষয়ে লালদিয়ার চরের যুবক আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, "মানবতার মা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী রোহিঙ্গাদের জায়গা করে দিচ্ছেন আমরা ১৪ হাজার মানুষ এদেশের নাগরিক এদেশের ভোটার আমরা কি দোষ করেছি..?। আমাদের দিকে মানবতার দৃষ্টি পড়েনা। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে আকুল আবেদন আমাদের পূণর্বাসনের ব্যবস্থা করে দিন। আমরা এখনে উড়ে এসে জুড়ে বসেনি, ১৯৭২ সালে আমরা বঙ্গবন্ধুর হাতে পূণর্বাসিত।"

চট্টগ্রাম


শেয়ার



আরও পড়ুন