আজকের সর্বশেষ

সন্দ্বীপে জমে উঠেছে ভ্রাম্যমাণ বইমেলা

গাজি মার্কেট তরুণ প্রবাসী ঐক্য পরিষদের আয়োজনে প্রথমবারের মতো মেধাবৃত্তি পরীক্ষা-২০২৩ সম্পন্ন

চট্টগ্রামে দৈনিক ভোরের দর্পণের ২২ বছর পূর্তি অনুষ্ঠান

সাংবাদিকতায় বিশেষ অবদান রাখায় সম্মাননা পদক পেলেন রিয়াদুল মামুন সোহাগ

দৈনিক ভোরের দর্পণ পত্রিকার ২৩ বছর পূর্তিতে জাতীয় সাংবাদিক সংস্থা চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিটির পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা

শত বয়সী মাওলানা রফিক উল্লাহ'র ইন্তেকাল

বার্ষিক শুকরানা মাহফিল, পুরস্কার বিতরণ ও গুণীজন সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত

বেসরকারি পর্যায়ে করোনা রোগীদের চিকিৎসা সেবায় অসামান্য অবদানের জন্য সমাজসেবা অধিদপ্তর কতৃক চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতালকে সম্মাননা স্মারক প্রদান......


মোস্তফা হাকিম কলেজে পোস্ট অফিস উদ্বোধনকালে সাবেক মেয়র এম মনজুর আলম: একটি ঐতিহ্যবাহী যোগাযোগ মাধ্যম ডাকবিভাগ





শেয়ার

প্রেস বিজ্ঞপ্তি :
বাংলাদেশ সরকারের ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের একটি অধিদপ্তর হচ্ছে বাংলাদেশ ডাক বিভাগ। সারা দেশে এই অধিদপ্তরের পোস্ট অফিস এর মাধ্যমে সুবিস্তৃত নেটওয়ার্ক রয়েছে। এই নেটওয়ার্কের মাধ্যমে সরকারি এ প্রতিষ্ঠানটি বহুমুখী মৌলিক ডাক সেবা এবং আর্থিক ও তথ্য প্রযুক্তি ভিত্তিক ডিজিটাল সেবা প্রদানে সারাদেশে বিপুল জনগণের মাঝে সেবা প্রদানে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে।
ডাক সেবার জন্য একমাত্র সরকারি প্রতিষ্ঠান হচ্ছে পোস্ট অফিস । রাষ্ট্র ও নাগরিকদের এক সময়ের যোগাযোগের একমাত্র মাধ্যমও ছিল এই রাষ্ট্রীয় ডাক যোগাযোগ ব্যবস্থা। গ্রাম থেকে শহরে দেশ থেকে বিদেশে সর্ব মহলে খবরাখবর সরবরাহের একটি জনপ্রিয় মাধ্যম ডাক বিভাগ তথা পোস্ট অফিস।
মুঠোফোন আসার পর চিঠিপত্র প্রায় নাই বললেই চলে। মানুষ প্রায় পোস্ট অফিসের কথা ভুলেই যেতে চলেছে। কিন্তু না ডাক বিভাগের অনেক সেবা না জানার কারণে অনেকে ডাক বিভাগের সেবা গ্রহণ করতে পারেন না।
মোবাইল আর ইন্টারনেটের এ যুগে ডাকবিভাগের গুরুত্ব কিছুটা হ্রাস পেলেও কালের পরিবর্তনে এ বিভাগেও এখন যুক্ত হয়েছে যুগোপযোগী সেবা ও এসেছে পরিবর্তন। যোগ হয়েছে সেবার মধ্যেও কিছু নতুনত্ব। আবার ঘুরে দাড়াতে শুরু করছে বাংলাদেশ ডাক বিভাগ।
একসময় চিঠি, পত্রিকা ও নথিপত্র অন্যত্র পাঠানোর জন্য সরকারি ডাকঘরই ছিল অন্যতম ব্যবস্থা। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে এখন এসব সেবার নিয়ন্ত্রণ কিছুটা বেসরকারি কুরিয়ার সার্ভিস প্রতিষ্ঠানের হাতে। বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে নিজেদের সেবায় ঘুরে দাঁড়াতে ডাক বিভাগও এখন নতুন নতুন সেবা চালু করছে। এসব সেবায় সাড়া মিললেও তা আশানুরূপ নয় বলা গেলেও মানুষের আস্থার জাগা কিন্তু এটি।
এদিকে এখনো ডাকসংক্রান্ত যত সেবা ডাকঘরে পাওয়া যায়, বেসরকারি প্রতিষ্ঠানগুলো তত সেবা দিতে পারে না। কারণ, সারা দেশে উপজেলা পর্যায় পর্যন্ত ডাক বিভাগের অফিস বিস্তৃত। বাজার, ওয়ার্ড ও ইউনিয়নেও রয়েছে ডাকবাক্স। পাশাপাশি অনেক দেশের ডাক অফিসের সঙ্গে বাংলাদেশের ডাক বিভাগের চুক্তি রয়েছে। এ ছাড়া ডাক বিভাগের সেবা এখন পর্যন্ত সাশ্রয়ী ও নিরাপদ।
উল্লেখ্য, উত্তর কাট্টলীর পোস্ট অফিস কর্ণেলহাটের একটি জরাজীর্ণ ভবনে ডাক ব্যবস্থার কার্যক্রম পরিচালনা চলছিল দীর্ঘদিন। এতে কার্যক্রম ব্যহত হলে চট্টগ্রাম বিভাগের ডেপুটি পোস্ট মাস্টার জেনারেল মো. আব্দুল্লাহর আবেদনের প্রেক্ষিতে কর্ণেলহাট হতে উত্তর কাট্টলী পোস্ট অফিস মোস্তফা হাকিম কলেজ ক্যম্পাসে স্থানান্তর করা হয়।
কলেজ ক্যাম্পাসের পোস্ট অফিস উদ্বোধন করেন
চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র ও উত্তর কাট্টলী আলহাজ্ব মোস্তফা হাকিম কলেজের প্রতিষ্ঠাতা এম মনজুর আলম।
অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মো. আব্দুল্লাহ, ডেপুটি পোস্ট মাস্টার জেনারেল চট্টগ্রাম বিভাগ।
এ সময় মনজুর আলম বলেন, 'বাংলাদেশ ডাকবিভাগের রয়েছে একটি ইতিহাস-ঐতিহ্য। এটি একটি রাষ্ট্রীয় সেবা প্রতিষ্ঠান। ১৯৭১ সালের ডিসেম্বর মাসে প্রতিষ্ঠিত হয় এই সংস্থা। আর পোস্টাল কোড চালু হয় ১৯৮৬ সালে। ২০১৭ সালের একটি অর্থনৈতিক সমীক্ষা অনুযায়ী দেশে বতর্মানে ডাকঘরের সংখ্যা ৯৮৮৬ টি। চিঠি-পত্র পার্সেল আদান প্রদানের জন্য মানুষের আস্থার ঠিকানা আজও ডাকবিভাগ। উত্তর কাট্টলী ডাক বিভাগ এখানে বিনা ভাড়ায় আগামী দশ বছর তাঁদের সেবা কার্যক্রম পরিচালনা করতে পারবে।'
পোস্ট অফিস উদ্বোধন উপলক্ষে  মনজুর আলম ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রীকে শুভেচ্ছা ও আন্তরিক ধন্যবাদ জানান এবং পরে পৃথকভাবে মন্ত্রী বরাবর একটি শুভেচ্ছা বার্তা প্রেরণ করেন।
অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, উত্তর কাট্টলী আলহাজ্ব মোস্তফা-হাকিম কলেজের অধ্যক্ষ মোহাম্মদ আলমগীর, উপাধ্যক্ষ মাহফুজুল হক চৌধুরী, অধ্যাপক আবু ছগির, মোস্তফা হাকিম কেজি এন্ড হাই স্কুলের প্রধান শিক্ষক আব্দুস সাত্তার মজুমদার, মহিব্বুর রহমান প্রমুখ । #

চট্টগ্রাম


শেয়ার

আরও পড়ুন