‘সিআরবিতে হাসপাতাল হবে না’- এই ঘোষণার অপেক্ষায় সর্ব সাধারণ মানুষ





শেয়ার

চট্টগ্রাম প্রতিনিধিঃ নাগরিক সমাজ চট্টগ্রামের সমাবেশে বক্তারা বলেন 'শত বছরের ইতিহাস-ঐতিহ্য, মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিবিজড়িত চট্টগ্রামের সিআরবিতে হাসপাতাল নির্মাণের মধ্য দিয়ে পুরো রেলের জায়গাকে আত্মসাৎ করার এক গভীর ষড়যন্ত্র চলছে। প্রাণ-প্রকৃতিতে ভরপুর চট্টগ্রামের ফুসফুস ধ্বংসের চক্রান্ত রুখে দাঁড়াবে চট্টগ্রামের সর্বস্তরের জনগণ। 

 

বুধবার (২৯ সেপ্টেম্বর) সিআরবি রক্ষায় আন্দোলনকারী সংগঠন নাগরিক সমাজের সমাবেশে বক্তারা এসব কথা বলেন। বৈরী আবহাওয়া উপেক্ষা করে সমাবেশে চলে গান-আবৃত্তি ও কথামালা।

 

সমাবেশে বক্তাগণ বলেন, শতবছরের ঐতিহাসিক সিআরবি আসাম বেংগল রেলওয়ের প্রধান কার্যালয়। মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিবিজড়িত এই সিআরবি ধ্বংস করে বাণিজ্যিক বেসরকারি হাসপাতাল নির্মাণ করার সিদ্ধান্ত অবিলম্বে বাতিল করতে হবে। সিআরবিতে ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধের ১০জন শহীদের কবরস্থান রয়েছে। এছাড়া নববর্ষসহ সাংস্কৃতিক কর্মকান্ডে প্রধান কেন্দ্রবিন্দু, চট্টগ্রাম মহানগরীর মানুষের শ্বাস নেওয়ার উম্মুক্ত স্থান এই সিআরবি। প্রকৃতির এক অপরূপ সৌন্দর্যের লীলাভূমি সিআরবিতে হাসপাতালের নামে অত্যন্ত গোপনীয় কায়দায় ৬০০ শতক রেলভূমি ইজারার মাধ্যমে ধ্বংস করার আয়োজন চলছে। রেলওয়ে হাসপাতালটিকে ননহ্যারিটেজ এলাকা দেখিয়ে পুরো রেলের জায়গাকে আত্মসাৎ করার এক গভীর ষড়যন্ত্র চলছে। চট্টগ্রামের মানুষ এখন শুধু সিআরবিতে হাসপাতাল হবে না" এই ঘোষণার অপেক্ষায়।

 

সমাবেশে বক্তব্য রাখেন নাগরিক সমাজ চট্টগ্রামে সদস্য সচিব আওয়ামী লীগ নেতা

বীর মুক্তিযোদ্ধা ইব্রাহিম হোসেন বাবুল, বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ ইউনুস, কবি হোসাইন কবির, সাংবাদিক নেতা কাজি মহসিন, বিজয় একাত্তর মহানগরে সভাপতি সজল চৌধুরী,জেলা শিল্প কলার যুগ্ম সম্পাদক মাইন উদ্দিন কোহেল,ঋত্বিক নয়ন, প্রনব চৌধুরী, খেলাঘর মহানগরের যুগ্ন সম্পাদক মোহাম্মদ মোরশেদ আলম, ডাঃ আর কে দাশ রুবেল, বনবিহারী চক্রবর্তী, কবি মিনু মিত্র, সাবের আহমেদ, বিপ্লব কুমার, নারায়ক দাশ,তাপস দে, সাজ্জাদ হোসেন জাফর, অ্যাডভোকেট আরুছ রাসেল, অ্যাডভোকেট অনির্বাণ দত্ত, অ্যাডভোকেট জায়েদিদ, মোহাম্মদ সাকিব প্রমুখ  অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন মহান কৃষক লীগ নেতা হুমায়ুন কবির মাসুদ।

চট্টগ্রাম


শেয়ার

আরও পড়ুন