পরিকল্পিত কোন উন্নয়ন চট্টগ্রাম শহরে হয়নি : ডা. শাহাদাত





শেয়ার

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির আহবায়ক ডা. শাহাদাত হোসেন বলেছেন, পরিকল্পিত কোনো উন্নয়ন চট্টগ্রাম শহরে হয়নি। চট্টগ্রামের প্রধান সড়ক আগ্রাবাদ থেকে পতেঙ্গা পর্যন্ত সড়কটি পুরোপুরি বিধ্বস্ত হয়ে গেছে। বর্তমানে এটি সড়ক হলেও দেখলে যেনো যুদ্ধবিধ্বস্ত কোনো নগরের দৃশ্য বলে মনে হয়। সড়কের কোথাও কোথাও গভীর গর্ত আর চারপাশ খানা খন্দে ভরপুর। আবার কোথাও রীতিমত চাষের জমির মতো।প্রধান সড়কগুলো এতোটাই বেহাল যে যানবাহন চলাচল করা পুরোপুরি দুরূহ হয়ে পড়েছে।

 

বুধবার (২৯ সেপ্টেম্বর) নগরীর উত্তর পতেঙ্গা কাঠগড়স্থ পতেঙ্গা কমিউনিটি সেন্টারে পতেঙ্গা থানা বিএনপির মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

 

পতেঙ্গা থানা বিএনপির সভাপতি সাবেক কাউন্সিলর ডা. নুরুল আবছারের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ শাহাবুদ্দীনের পরিচালনায় মতবিনিময় সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক মোহাম্মদ মিয়া ভোলা, এস.এম সাইফুল আলম, নাজিমুর রহমান, ইয়াছিন চৌধুরী লিটন, আহবায়ক কমিটির সদস্য মো. কামরুল ইসলাম, কোতোয়ালি থানা বিএনপির সভাপতি মন্জুর রহমান চৌধুরী। বক্তব্য রাখেন নগর বিএনপি নেতা সাবেক কমিশনার মো. ইসমাইল, মুজিবুল হক, ইদ্রিস আলী, থানা বিএনপির সহ সভাপতি আবু জাফর, মো. ইউছুপ, মো. লোকমান কন্ট্রাকটার, মো. সোলায়মান, যুগ্ম সম্পাদক মো. আলমগীর, আবদুল হাকিম, মো. লোকমান, জসিম উদ্দীন, ওয়ার্ড় বিএনপির সভাপতি মো. ইলিয়াছ, মো. হারুন, সাধারণ সম্পাদক মন্জুর কাদের, মো. শফি মেম্বার, থানা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক নাজমুল হুদা চৌধুরী নাজিম, রেজাউল করিম, মো. সেলিম, দপ্তর সম্পাদক শহীদুল ইসলাম রানা, প্রচার সম্পাদক মো. গিয়াস উদ্দীন প্রমুখ।

 

চট্টগ্রামবাসী এখন মহাদুর্ভোগে আছে মন্তব্য করে গত নির্বাচনে বিএনপির এই মেয়র প্রার্থী বলেন, দুর্ভোগ আর দুর্যোগের মধ্যেই দিন পার করছে নগরবাসী। চট্টগ্রামের উন্নয়ন ও জলবদ্ধতা নিরসনে সরকার দীর্ঘমেয়াদি মহাপরিকল্পনা নিয়ে কার্যকর কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করতে পারেনি। চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন ও সিডিএ একে অপরের বিরুদ্ধে বিষোদগার করে যাচ্ছে।

 

মুরাদপুরে নালায় পড়ে সালেহ আহমদ নিখোঁজের পর সিটি করপোরেশনের দায় সিডিএকে দিয়েছে। আগ্রাবাদে নালায় পড়ে মেধাবী শিক্ষার্থী সাদিয়ার মৃত্যুর ঘটনার জন্যও একে অপরকে দায়ী করছে। দেশে গণতন্ত্র ও জবাবদিহিতা না থাকার কারণে তারা একে অপরকে দোষারোপ করে জনগণ থেকে বাঁচতে চাচ্ছে। কিন্তু সিডিএ বা সিটি করপোরেশন এসব মৃত্যুর দায় কোনভাবেই এড়াতে পারে না। দায়ী ব্যক্তিদের অবশ্যই শাস্তির আওতায় আনতে হবে বলেন ডা. শাহাদাত।

 

ডা. শাহাদাত বলেন, উন্নয়নের নামে সরকারের নেতাকর্মীরা শুধু পকেট ভারি করছে। চট্টগ্রামবাসীর কল্যাণে তারা কোনো কাজ করছে না। নগরবাসী চিকিৎসা ও নাগরিক সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। খাদ্যদ্রব্যের দাম অস্বাভাবিক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। এতে নিম্ন মধ্যবিত্ত ও মধ্যবিত্তরা বেশি সমস্যায় পড়েছেন। তিনি সরকারের এসব অন্যায় অপকর্মের জবাব দেয়ার জন্য তৃণমূল পর্যায়ে নেতাকর্মীদের সংগঠিত করে আগামী দিনের আন্দোলনের জন্য প্রস্তুত থাকার আহবান জানান।

প্রধান বক্তার বক্তব্যে চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সদস্য সচিব আবুল হাশেম বক্কর বলেন, চট্টগ্রামের নালা নর্দমার মতো সারাদেশ এখন উন্মুক্ত নালায় পরিনত হয়েছে। সাধারণ মানুষের কোন নিরাপত্তা নেই। চারিদিকে শুধু অস্বাভাবিক মৃত্যু। স্বাভাবিক মৃত্যুর কোন নিশ্চয়তা নেই। চট্টগ্রাম এখন মাদকের আখড়ায় পরিণত হয়েছে। আওয়ামী লীগ নেতাদের ছত্রছায়ায় সন্ত্রাসও ব্যাপক আকারে বৃদ্ধি পেয়েছে।

 

 

চট্টগ্রাম


শেয়ার