ধর্ষণ করা হলো মামলার সাক্ষী দেওয়ায়!





শেয়ার

চট্টগ্রাম:  মহানগরীর বায়েজিদ থানাধীন ডেবারপাড় এলাকায় অভিযান চালিয়ে ধর্ষণ মামলার সাক্ষী দেওয়ায় ধর্ষণের শিকার হওয়া ধর্ষিতার দায়েরকৃত ধর্ষণ মামলার প্রধান আসামী এবং অপর এক সহযোগী আসামীকে আটক করেছে র‌্যাব-৭।

 

গতকাল শুক্রবার ৮ জানুয়ারি দুপুরে বায়েজিদ থানাধীন ডেবারপাড় এলাকায় অভিযান চালিয়ে ধর্ষণ মামলার প্রধান আসামীকে সহযোগীসহ আটক করা হয়েছে বলে জানান র‌্যাব-৭ এর সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) মোঃ নুরুল আবছার। 

 

আটককৃত আসামীরা উভয়ই চট্টগ্রাম মহানগরীর বায়েজিদ থানাধীন জামতলা (ডেবারপাড়) এলাকার আব্দুল লতিফের ছেলে আলমগীর (৩০) এবং মৃত শেখ নুর আহাম্মদের ছেলে সহযোগী মাহবুব আলম (৩১)।

 

র‌্যাব-৭ এর সহকারী পরিচালক হাটহাজারী সিপিসি-২ ক্যাম্প কমান্ডার মেজর মুশফিকুর রহমান জানান, ধর্ষণ মামলার সাক্ষী দিতে এসে ধর্ষণের শিকার হয় এক নারী। এই ঘটনা মিডিয়া ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ সারা দেশে ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি করে এবং ভুক্তভোগী চট্টগ্রাম মহানগরীর আকবরশাহ থানায় ৬ জনকে মূল আসামি করে অজ্ঞাতনামা ৪ জনসহ মোট ১০ জনের বিরুদ্ধে একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করে। 

 

এরপর আসামীদের গ্রেফতারের লক্ষ্যে ছায়াতদন্ত শুরু হয়। ছায়াতদন্তের এক পর্যায়ে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মহানগরীর বায়েজিদ থানাধীন ডেবারপাড় এলাকার ব্রিক ফিল্ড রোডস্থ বায়তুল মুনাফ জামে মসজিদ এর সামনে থেকে দুই জনকে আটক করা হয়।

 

তিনি আরও জানান,ধর্ষণ মামলার প্রধান পরবর্তীতে আটককৃত আসামীদের জিজ্ঞাসাবাদে তারা র‌্যাবের নিকট প্রাথমিকভাবে ধর্ষণের সাথে তাদের সংশ্লিষ্টতার কথা স্বীকার করে। আটককৃত আসামিদের চট্টগ্রাম মহানগরীরর আকবরশাহ থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

 

চট্টগ্রাম


শেয়ার