সাংস্কৃতিক চর্চা ছাড়া সুপ্ত প্রতিভা ও মেধা বিকাশ সম্ভব নয়





শেয়ার

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ তরুণেরাই আগামীর পথনির্দেশক। তরুণদের প্রতিভা বিকাশে পড়া লেখার পাশাপাশি সাংস্কৃতিক চর্চা করা খুবই প্রয়োজন। অনেক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানেই শিক্ষার্থীরা পড়াশোনার বাইরে সহশিক্ষা কার্যক্রমের সুযোগ পায় না। কিন্তু সাংস্কৃতিক কার্যক্রম ছাড়া তরুণদের সুপ্ত প্রতিভা ও মেধা বিকাশ সম্ভব নয়। আজকাল পাঠ্যবই ও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম নিয়ে শিক্ষার্থীরা বেশি ব্যস্ত থাকে বলে শোনা যায়। শুধু পাঠ্যবই পড়লেই চলবে না, পাশাপাশি সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডের প্রতিটি শাখায় নিজেকে সম্পৃক্ত করতে হবে।

 

শুক্রবার (১ জানুয়ারি) বিকেলে রাউজান উপজেলার ১২নং উরকিরচর ইউনিয়ন পরিষদের কার্যালয়ে “উরকিরচর ইউনিয়ন সংগীত বিদ্যালয়” নামক নতুন ধারার এক সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান গড়ার লক্ষ্যে অত্র এলাকায় সরাসরি সাংস্কৃতিক কর্মকান্ডে জড়িত সাংস্কৃতিক কর্মীদের সাথে মতবিনিময় কালে পরিষদের কার্যালয়ে সভায় ১২ নং উরকিরচর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, রাউজান থানা আওয়ামী যুব লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আবদুর জব্বার সোহেল এসব কথা বলেন।

 

উক্ত মতবিনিময় সভায় এলাকার ছেলে মেয়েদের সাংস্কৃতিক প্রতিভা বিকাশের লক্ষে একটি সংগীত বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়। উরকিরচর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান উক্ত সংগীত বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান পৃষ্ঠপোষক হিসেবে সম্মতি জ্ঞাপন করেন। “উরকিরচর ইউনিয়ন সংগীত বিদ্যালয়” নামিয় প্রতিষ্ঠানটি আগামি ৫ ফেব্রুয়ারি পথচলা শুরু করবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

 

 

সভায় সৈয়দ আবদুর জব্বার সোহেল  সভাপতি, অলকেষ বড়ুয়া তপু সহ সভাপতি, সজল দেব সহ সভাপতি, রুপায়ন বড়ুয়া কাজল সদস্য সচিব,

জুয়েল বড়ুয়াকে কোষাধক্ষ এবং কিরণ বড়ুয়া, রিপন বড়ুয়া, মিলন বনিক, মোঃ কামরুল হাছান ও রুমা বড়ুয়াকে মহিলা প্রতিনিধি করে ১১ জন বিশিষ্ট কমিটি ঘোষণা করা হয়। এবং সঙ্গীতজ্ঞ বাবু হিরাধন বড়ুয়া, অধ্যক্ষ ও বাবু প্রবীর বড়ুয়া উপাধ্যক্ষ হিসাবে সংগীত বিদ্যালয়ের দায়িত্ব পালন করবেন বলে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

চট্টগ্রাম


শেয়ার