অঘাট ঘাট হয়েছে সরকারের উন্নয়নের ছোঁয়ায়





শেয়ার

চট্টগ্রাম: চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্রশাসক খোরশেদ আলম সুজন বলেছেন বর্তমান সরাকারের উন্নয়নের ছোঁয়ায় অঘাট ঘাট হয়েছে, অপথ পথ হয়েছে। চট্টগ্রাম নগরীর পাড়া গাঁয়ের সড়ক ও এখন পিচ ঢালায় করা প্রশস্ত। নগরবাসীকেও নাগরিকসেবা প্রাপ্তিতে তাদের দায়িত্ব সম্পর্কে সচেতন হতে হবে। সড়ক বাতি লাগানো,  আলোকায়ন, ময়লা আবর্জনা পরিস্কার পরিচ্ছন্ন কার্যক্রমে প্রচুর অর্থের প্রয়োজন। নগরীতে সেবার পরিধি ও  জনসংখ্যার চাপ বাড়লেও কর্পোরেশনের আয় বাড়েনি। তাই যেসকল নগরবাসী এখনও পূর্বের রেটে তাদের  পৌরকর পরিশোধ করেননি তা দিয়ে দিন। এখন সারচার্জ মওকুফ করে। কাঁচা ঘরে বসবাসকারীদের কোন পৌরকর দিতে হবে না। তবে ভাড়া ঘর থাকলে দিতে হবে। 

 

তিনি আজ ৩নং পাঁচলাইশ ওয়ার্ডে পরিদর্শনে গিয়ে এলাকাবাসীর উদ্দেশ্যে একথা বলেন। এসময় প্রশাসকের একান্ত সচিব মো. আবুল হাশেম, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি জামাল উদ্দীন, সাধারণ সম্পাদক আব্দুর শুক্কুর ফারুকী, সাংগঠনিক সম্পাদক জসীম উদ্দিন, আওয়ামী লীগ নেতা জমির উদ্দীন, মহিলা আওয়ামী লীগ নেত্রী শাহনাজ বেগম, এয়াকুব, ইমরান, রাসেল, ভুট্টো, সেলিম, প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

 

করোনা মহামারীর কারনে ক্যারাভান কর্মসূচি স্থগিত চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্রশাসক খোরশেদ আলম সুজন নগরীর ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে জনসমাগম এড়িয়ে পরিদর্শনে যাচ্ছেন। ওয়ার্ড সমূহের  সমস্যাগুলো চিহিৃত করার চেষ্টা করছেন। ৩নং পাঁচলাইশ ওয়ার্ডের জনসাধারণের সাথে মতবিনিময়কালে তিনি হেঁটে এলাকার রাস্তা-ঘাট পরিদর্শন করেন। নালা ঝোপঝাড়ে মশার ওষুধ ছিটানোর পাশাপাশি করোনা সচেতনতায় এলকাবাসীর মাঝে মাস্ক বিতরণ করেন। এ সময় তিনি বলেন এই পাঁচলাইশ ওয়ার্ড ছিল খুবই অনুন্নত এলাকা। এই  এলাকার রাস্তাঘাটের যে উন্নতি ও প্রশস্ততা বেড়েছে, তার পেছনে রয়েছে প্রয়াত কাউন্সিলর লিয়াকত আলী খানের অবদান।

 

তিনি এলাকার উন্নয়নের স্বার্থে  বারংবার প্রয়াত মেয়র মহিউদ্দীন ভাইয়ের কাছে ধর্না দিয়েছেন। যার সুফল ভোগ করছেন এই ওয়ার্ডের বাসিন্দারা। প্রশাসক করোনা মোকাবেলায় ওয়ার্ডের বাসিন্দাদের সবসময় মাস্ক পরিধান করে প্রয়োজনীয় কাজে বের হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন। তিনি সামাজিক অনুষ্ঠানে যেমন বিয়ে শদীতে জনসমাগম না করার পরামর্শ দিয়েছেন। প্রশাসক বলেন, নগরবাসীর প্রতি আহ্বান আপনারা নিজরা সুরক্ষিত থাকুন। মাস্ক পরিধান করুন, বার বার সাবান দিয়ে হাত ধুবেন। অর্থনীতির কারণে দেশে আর লকডাউন দেয়া সম্ভব নয়। তাই মাস্ক পরিধানে সুরক্ষা মেনে চলে করোনাকে লকডাউন করতে হবে। এটাই এ মহামারী থেকে বাঁচার একমাত্র পথ।

 

চট্টগ্রাম


শেয়ার