চট্টগ্রামে সমাবেশে মামুনুল-বাবুনগরীর বিচার দাবী





শেয়ার

চট্টগ্রাম: সরকারী উদ্যোগে বাংলাদেশের প্রতি ওয়ার্ড-ইউনিয়নে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য প্রতিষ্ঠার দাবি জানানো হয়েছে চট্টগ্রামের এক পেশাজীবী-সাংস্কৃতিক কর্মীদের সমাবেশে। সমাবেশ থেকে মামুনুল-বাবুনগরীর বিচার দাবি জানানো হয়।

 

বক্তারা হেফাজত আমীর আল্লামা শফির মৃত্যুর নেপথ্যে তার অনুসারীদের  কোন পক্ষের হত্যা উদ্দেশ্য ছিল কিনা তা খতিয়ে দেখারও দাবি জানান । সমাবেশ প্রতিবাদি গান, আবৃত্তিও পরিবেশিত হয়। 

 

পেশাজীবী সমন্বয় পরিষদ ও সম্মিলিত সাংস্কৃতিক স্কোয়াডের যৌথ উদ্যোগে মানববন্ধন সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয় এতে প্রফেসর ডাঃ  একিউএম সিরাজুল ইসলামের সভাপতিত্বে ও সাইফুল আলম বাব'ুর সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান, বিএফইউজে-বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সহ-সভাপতি ও পেশাজীবী সমন্বয় পরিষদের সাধারণ সম্পাদক রিয়াজ হায়দার চৌধুরী, কলেজ শিক্ষক সমিতির কেন্দ্রীয় সহ সভাপতি আবু তাহের চৌধুরী, চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের সাবেক সভাপতি মোস্তাক আহমদ,  চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির সাবেক সভাপতি প্রফেসর বেনু কুমার দে, চট্টগ্রাম সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী ফরিদ শিক্ষক সমিতি সমিতির সাধারণ সম্পাদক অঞ্চল চৌধুরী, গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশনের সহ-সভাপতি ম. সাইফুল আলম চৌধুরী ও মোসলেম উদ্দিন সিকদার, চট্টগ্রাম আবৃত্তি জোটের আব্দুল হালিম দোভাষ, গ্রুপ থিয়েটার ফোরামের সভাপতি খালেদ হেলাল, সাবেক কাউন্সিলর মোহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন ও হাসান মুরাদ বিপ্লব, নৃত্য শিল্পী সংস্থার সভাপতি শারমিন হোসেন, মহানগর পুজা উদযাপন পরিষদের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সুমন দেবনাথ প্রমুখ । 

 

শুরুতেই সংগীত পরিবেশন করেন স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের শিল্পী সুজিত রায় ও জয়ন্তী লালা, শিল্পী  আলাউদ্দিন তাহের, শ্রেয়শী রায়, দীপেন  চৌধুরী, শামসুল হায়দার তুষার। আবৃত্তি পরিবেশন করেন মিলি চৌধুরী জাবেদ হোসেন, কংকন দাশ, মুজাহিদুল ইসলাম । বঙ্গবন্ধুর ভাষণ তুলে ধরেন শিশুশিল্পী অনন্য বড়ুয়া।

 

বিভিন্ন সংগঠন থেকে একাত্মতা জানিয়ে বক্তব্য রাখেন : বেতার টেলিভিশন শিল্পী কল্যাণ সংস্থার সাবেক সভাপতি কায়সারুল আলম , মন্চ শিল্পী সংস্থার সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট  কামরুল আযম টিপু, দৃষ্টির মাসুদ বকুল, খেলাঘরের আশীষ সেন, মোরশেদুল আলম চৌধুরী, রুবেল দাশ প্রিন্স, মনোয়ার জাহান মনি, জসীম উদ্দীন, উদীচী'র শীলা চৌধুরী, গ্রুপ থিয়েটার ঐক্য পরিষদের যুগ্ম সম্পাদক তামরাজুল আলম, জয় বাংলা শিল্পী গোষ্ঠীর সভাপতি কবি সজল দাশ, বাংলার মুখ সাধারণ সম্পাদক জসিম উদ্দিন মিঠুন, রূপকল্পের শাখাওয়াত হোসেন সাকু ও নঈম উদ্দিন, সাবেক কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতা আব্দুল্লাহ আল মামুন, ইয়াসির আরাফাত প্রমুখ। 

 

উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম জেলা শিল্পকলা একাডেমীর সহসভাপতি জাহাঙ্গীর কবির, অধ্যাপক সঞ্জীব বড়ুয়া , এডভোকেট দীপক চৌধুরী, সিইউজে নির্বাহী সদস্য মোহাররম হোসেন,  শহীদুল করিম নিন্টু, সুচরিত চৌধুরী, শিল্পী শিলা চৌধুরী, এডভোকেট টিপু শীল জয় দেব, কালার্স একাডেমীর সভাপতি  ফরহাদ শাহ্, আলোকচিত্রী হান্নান হীরা,  মহানগর ছাত্রলীগ নেতা নাছির উদ্দিন কুতুবী, জালাল আহমেদ রানা, সাজু চৌধুরী প্রমুখ । 

 

সমাবেশে বিএফইউজে -বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সহ-সভাপতি রিয়াজ হায়দার চৌধুরী চট্টগ্রামে  একটি বঙ্গবন্ধু স্কোয়ার প্রতিষ্ঠা করে সেখানে বঙ্গবন্ধু ভাস্কর্য, বুদ্ধিজীবী স্মৃতিস্তম্ভ ও মুক্তিযুদ্ধের শহীদ স্মৃতি সৌধ নির্মাণের দাবি জানান । এই লক্ষ্যে তিনি মাননীয় তথ্যমন্ত্রী ড. হাসান মাহমুদ ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।

 

তিনি বলেন, একাত্তরের পরাজিত শক্তি মৌলবাদিদের ডানায় ভর করে বদলা নিতে চাচ্ছে । তাই তারা বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য অপসারণ হুংকারের দুঃসাহস দেখায়। মামুনুল জনবিক্ষোভে চুপিসারে চট্টগ্রাম ত্যাগ করলেও রাতের আধারে কীভাবে, কাদের তত্বাবধানে এই হুংকারদানকারী চট্টগ্রামে আসার দুঃসাহস করে, তাও খতিয়ে দেখার দাবি জানান এই পেশাজীবী নেতা। হেফাজত আমীর আল্লামা শফির মৃত্যুর নেপথ্যে তার অনুসারী দাবিদার  কোন পক্ষের হত্যা উদ্দেশ্য ছিল কিনা তা খতিয়ে দেখারও দাবি জানান তিনি । 

 

সমাবেশে সভাপতির বক্তব্যে পেশাজীবী সমন্বয় পরিষদের সভাপতি প্রফেসর ডাঃ একিউএম সিরাজুল ইসলাম অবিলম্বে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যের বিরোধীতাকারী বাবুনগরী-মামুনুল গংয়ের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা দাবি করেন।

 

তিনি বলেন, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি ও দেশের গণতন্ত্র উন্নয়নের বিরুদ্ধে ইউটিউব সহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিরোধীতাকারীদের বিষয়ে যথাযথ করণীয় নির্ধারণ করতে তথ্য ও আইসিটি মন্ত্রনালয়ের পদক্ষেপের দাবি জানান ।

 

চট্টগ্রাম


শেয়ার