চট্টগ্রামকে নান্দনিক ও বাসযোগ্য নগরীতে পরিণত করতে চাই





শেয়ার

চট্টগ্রাম:  চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্রশাসক মোহাম্মদ খোরশেদ আলম সুজন বলেছেন, সকলের সমন্বিত প্রচেষ্টায় চট্টগ্রামকে একটি নান্দনিক ও বাসযোগ্য নগরীতে পরিণত করতে চাই। এ জন্যে যারা সহযোগিতা করতে আগ্রহী তাদের স্বাগত জানাই। আশা করি সৌন্দর্য্যবর্ধণ ও দৃষ্টি নন্দন  চট্টগ্রাম নগরী গড়তে নৌ-বাহনিী ও বিমান বাহিনীর অধীন স্থাপনা, তাদের ঘাঁটি, পোতাশ্রয় এবং নিবাস এলাকার বাইরে রাস্তার পার্শস্থ এলাকায় সৌন্দর্যবর্ধন করে  সাজিয়ে তুলবেন। 

 

তিনি আজ নৌ-বাহিনীর  চট্টগ্রাম নৌ অঞ্চলের কমান্ডার রিয়ার এডমিরাল এম মোজাম্মেল হক, ওএসপি, এনইউপি, এনডিসি, পিএসসি’র সাথে নিউ মুরিংয়ে বিএনএস ঈশা খান ঘাঁটি ও বিমান বাহিনীর জহুরুল হক ঘাটির  এয়ার অধিনায়কে সএয়ার ভাইস মার্শাল এএসএম ফখরুল ইসলাম, জিইউপি, এনডিসি, এএফডব্লিউসি, পিএসসি’র সাথে পতেঙ্গা জহুরুল হক ঘাঁটিতে পৃথক পৃথক সৌজন্য সাক্ষাতকালে এ কথাগুলো বলেন। 

 

তিনি বিলেন,  এই দুই বাহিনীর অধীন এলাকাগুলো নেক দৃষ্টিনন্দন ও সৌন্দর্য্যময়। কিন্তু তাদের স্থাপনার বাইরের অংশেও যদি তারা  উদ্যোগ নিয়ে সৌন্দর্য বর্ধনের কাজ করেন, তাহলে এয়ারপোর্টে রোডটিকে আরো বেশি নান্দনিক রূপ দেয়া যাবে। এ বিষয়ে ভূমিকা রাখার  জন্য তিনি নৌ ও বিমান বাহিনীর কমান্ডার দ্বয়ের প্রতি আহবান জানান। তিনি করোনাকালে চট্টগ্রাম নগরীতে নৌ ও বিমান বাহিনীর সচেতনতামূলক কার্যক্রম, মাস্ক ও স্যানিটাইজার  বন্ঠনসহ শত শত হতদরিদ্র মানুষের মাঝে ত্রাণ বিতরণের জন্য কর্পোরেশনের অক্ষ থেকে  ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। দুই অধিনায়ক নগরের রাস্তাঘাট মেরামত ও  পরিস্কার রাখা, ফুটপাত দখলমুক্ত করা  এবং আবর্জনা ও  ড্রেনেজ ব্যবস্থার উন্নয়নে প্রশাসকের ভূমিকার প্রশংসা করেন এবং চলমান কর্মসূচি অব্যাহত রাখা ও আরো বেগবান করার জন্য অনুরোধ করেন।

 

চট্টগ্রাম


শেয়ার