আরিকা মাইশার ‘পিশাচকথন’





শেয়ার

নিজস্ব প্রতিবেদক: কিছু  কিছু জিনিস শুরু হয় হঠাৎ করেই। তেমন‌ই এক শুভ দিনের সূচনা হলো এই আন্তর্জাতিক নারী দিবসের শুভক্ষণে। শুরু হলো নতুনের পথে হাঁটা। এ নতুন পথে হাতে হাত মিলিয়ে হাঁটতে দেখা যাবে দু বাংলার কিছু নতুন মুখ। কাঁটাতারের সব বাঁধা দূরে সরিয়ে দিয়ে আধুনিক যুগের মুঠো ফোন‌ই সারলো নতুন কাজের চিত্রনাট্যের আদান-প্রদান। 

 

খুব শীঘ্র‌ই শুরু হবে সেই চিত্রনাট‍্যকে ক‍্যামেরায় বন্দির কাজ। তৈরি হবে এক স্বল্প দৈর্ঘ্যরে ছবি, নাম  "পিশাচকথন"। এ ছবির পরিচলনার কাজ করবে ওপার বাংলা অর্থাৎ ভারতবর্ষের দুই নতুন মুখ রাহুল বনিক ও রাজীব বনিক। তাদের দুজনের বাড়িই ভারতের  হুগলী-র শ্রীরামপুরে। সম্প্রতি তাদের বানানো একটি ad film  বড়ো পর্দায় ঘুরে এলো Kolkata International Micro Film Festival -এর হাত ধরে এবং সেখান থেকে তারা বহু মানুষের ভালোবাসা ও বিশেষ সম্মান পেয়ে সত্যিই আপ্লুত। এবার তাদের সুযোগ ঘটলো দু-বাংলা মিলে একসাথে কাজ করার। 

 

ছবির পরিচালক রাজীব ও রাহুল জানিয়েছে, "এ ছবি তৈরির সুযোগ পেয়ে আমরা সত্যিই খুব আনন্দিত। এ ছবি তৈরির কাজে আমরা ছাড়াও সক্রিয় ভূমিকায় পাওয়া যাবে অমিত প্রামাণিক, শুভ্রদীপ পলতা, সোহম ভট্টাচার্য্য সহ সায়ন ব‍্যানার্জী-র মতো একটা তরুণ দলকে।" 

 

ছবির পরিচালক রাজীব বনিক জানিয়েছে, "গল্পের বাঁধন সত্যিই খুব ভালো। তবে গল্প আর সিনেমার ভাষা যেহেতু দুটো দুরকম, সেহেতু নতুন ধাঁচে গল্পকে আর একটু জোরকদমে বাঁধতে হবে। আর তা সফল ভাবে করতে পারলেই এ গল্প হয়ে উঠবে এক্কেবারে দর্শকের মনের মতো।" গল্পের লেখিকা আরিকা মাইশা কে কুর্নিশ জানিয়েছে এই ছবির তরুণ দল। 

 

বাংলাদেশের চট্টগ্রাম জেলার বাসিন্দা গল্পের লেখিকা আরিকা মাইশা জানিয়েছেন "এ গল্পের মাধ্যমে পুরুষশাসিত সমাজে নারীদের প্রতি সহিংসতার চিত্র তুলে ধরা হয়েছে। এ ছবি সফলতার সাথে তৈরি হলে ভারতবর্ষ ও বাংলাদেশ দু-স্থানেই এ ছবি বড়ো পর্দায় চলবে বলে আমার বিশ্বাস। ছবি তৈরির কাজ শুরু হবে খুব শীঘ্র‌ই। তাই তিনি সকলের কাছে শুভকামনা প্রত্যাশা করেছেন। 

এক্সক্লুসিভ


শেয়ার