ঘুমন্ত স্বামীকে ফুটন্ত পানি ঢেলে হত্যা, স্ত্রীর সাজা





শেয়ার

মধ্যরাতে ঘুমন্ত স্বামীকে চিনি মিশ্রিত ফুটন্ত পানি শরীরে ঢেলে হত্যা করার অপরাধে দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন করিনা স্মিথ নামের এক নারী। ২০২০ সালের ২০ জুলাই ইংল্যান্ডের লিভারপুলে ৮১ বছর বয়সী মাইকেল বাইনেসের উপর এমন বর্বর ঘটনা ঘটান ওই নারী।  ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি জানিয়েছে, ঘটনার পরই তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। কিন্তু শরীরের এক তৃতীয়াংশেরও বেশি ঝলসে যাওয়ায় পাঁচ সপ্তাহ পর ১৮ আগস্ট হাসপাতালে মারা যান তিনি।    তবে, স্মিথ স্বামীকে হত্যার বিষয়টি অস্বীকার করেছেন। কিন্তু তথ্য প্রমাণ পর্যালোচনা করে মঙ্গলবার (১৫ জুন) চেস্টার ক্রাউন কোর্টের একটি জুরি বোর্ড তাকে দোষী সাব্যস্ত করে রায় দিয়েছেন। ৯ জুলাই তার সাজা কার্যকর হবে বলে জানিয়েছে আন্তর্জাতিক ওই সংবাদমাধ্যমটি।    ক্রাউন প্রসিকিউশন সার্ভিস (সিপিএস) এর বরাত দিয়ে বিবিসি জানিয়েছে, হত্যার আগে স্মিথ মাইকেল এবং তার পরিবারের অন্য এক সদস্যের সাথে বিরোধে জড়িয়ে পড়েছিলেন। সেই ক্ষোভ থেকেই তিনি স্বামীকে হত্যা করেন।  

 

সিপিএস জানিয়েছে, মধ্যরাতের কিছুক্ষণ পরেই সে তার বাগান থেকে একটি বালতি নিয়ে সেটিতে পানি ভরে কেটলিতে পানি সিদ্ধ করে চিনির সাথে মিশিয়ে দেন। এরপর ঘুমন্ত স্বামীর উপর ঢেলে দেন।    ঘটনার পরপরই পুলিশ ঘটনাস্থলে আসে। তারা আহত ওই ব্যক্তিকে বাড়িতে পান। তার দেহের এক তৃতীয়াংশেরও বেশি ঝলসে গিয়েছিল। তিনি তখন যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছিলেন বলে প্রতিবেদনে বলা হয়।    সিপিএস জানিয়েছে, স্মিথ প্রথমে তার ভিন্ন গল্প সাজিয়েছিল। যা দিয়ে সে প্রতিবেশিদের সাহায্য নিয়েছিলেন। কিন্তু পুলিশি জেরায় পরে সব স্বীকার করে নিয়েছেন। তিনি দাবি করেছিলেন, ওইসময় নিজের উপর কোন নিয়ন্ত্রণ ছিল না।    কিন্তু সিপিএস এর কর্মকর্তা জেন মরিস বলেছেন, আদালতে প্রমাণ হয়েছে তিনি ওই সময় নিয়ন্ত্রণে ছিলেন এবং প্রতিশোধের জন্যই তিনি স্বামীর উপর গরম পানির মিশ্রণটি ঢেলে দিয়েছিলেন।    শুনানির পরে কথা বলতে গিয়ে জেন মরিস বলেছিলেন, স্মিথ তার স্বামীকে ‘পাশবিক ও যন্ত্রণাদায়কভাবে’ হত্যা করেছেন।

আন্তর্জাতিক


শেয়ার